• ঢাকা, বাংলাদেশ বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:২৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম
ব্রিটিশ হাইকমিশনারের সঙ্গে বিএনপি নেতাদের বৈঠক ফের এক হচ্ছেন তাহসান-মিথিলা ইরানের ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞা দেবে ইইউ দুর্গাপুরে দিনব্যাপী প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনীর উদ্বোধন ও সমাপনী  বেসিক ব্যাংক একীভূত করার প্রক্রিয়া বন্ধের দাবিতে রাজশাহীতে মানববন্ধন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ‘হস্তক্ষেপ’ নিয়ে চিন্তিত প্রার্থীরা প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ ও প্রদর্শনীর উদ্বোধন প্রধানমন্ত্রীর গোমস্তাপুরে প্রাণীসম্পদ সেবা সপ্তাহ ও পশু সম্পদ প্রদর্শনীর উদ্বোধন নওগাঁ শান্ত ও সন্ত্রাসী বাহিনীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবীতে মানববন্ধন নগরীতে ট্যাপেন্টাডল ট্যাবলেটসহ একজন গ্রেপ্তার

চারঘাটে আগুণে পুড়ে ৫টি বাড়ী ভস্মিভুত, খোলা আকাশের নিচে বসবাস

রিপোর্টার নাম:
সর্বশেষ: মঙ্গলবার, ১২ মার্চ, ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক :
রাজশাহীর চারঘাটে আগুণের লেলিহান শিখায় ৫টি বাড়ী পুড়ে ভস্মিভুত, কেড়ে নিলো একটি লক্ষাধিক টাকা মুল্যের তরতাজা গরুর প্রান। দিশেহারা বাড়ী গুলোর লোকজন। পরণের কাপড় ছাড়া একটি জিনিসিপত্রও বের করতে পারেনি অসহায় পরিবারের লোকজন।

তবে তাৎক্ষনিক সময়ে পরিবার গুলোর পাশে দাড়িয়েছেন উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ¦ ফকরুল ইসলাম,ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শামিম আহম্মেদ। ফয়ার সার্ভিসের ৭ সদস্যের একটি টিম ২ ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনেন। সোমবার সন্ধ্যার আগ মুহুর্তে উপজেলার নিমপাড়া ইউনিয়নের হাবিবপুর নামক গ্রামে আগুনের এ ঘটনা ঘটে।

নিমপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান জানান, সোমবার সন্ধ্যার আগ মহুর্তে উপজেলার নিমপাড়া ইউনিয়নের হাবিবপুর গ্রামের জনৈক আজিজুল হকের রান্না করা চুলার আগুন থেকে আগুনের সুত্রপাত ঘটে। এরপর ওই বাড়ীর শফিকুল, রিপন আলী, জারমানের বাড়ীতেও আগুন লেগে যায়। এরপর পাশের জাবেদ আলীর সেমি পাকা ঘরে আগুন লেগে গেলে আগুনের লেলিহান শিখায় ৫টি পরিবার পুড়তে থাকে। স্থানীয়রা বাঘা ফায়ার সার্ভিসে খবর দিলে সেখানকার রিডার রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে ৭ সদসের একটি টিম এসে ২ ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনেন। আগুন নিয়ন্ত্রনে আসার আগেই ৫টি পরিবারের সব কিছু পড়ে ভষ্মিভুত হয়ে যায়। কেড়ে নেয় লক্ষাধিক টাকা মুল্যের একটি গুরুর জীবন। এতে ৫টি পরিবারের মাথা গোজার কিছুই অবশিষ্ট নেই। অনেকটা খোলা আকাশের নিচে পড়ে যায় অসহায় পরিবার গুলো।

আগুনে পুড়ে নিস্ব শফিকুল বলেন, আগুন হঠাত এতো দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছিল যে পরণের কাপড় ছাড়া কিছুই বের করা সম্ভব হয়নি। এমনকি খাবারের চাল পর্যন্ত বের করতে পারিনি আমরা কেউ।

এ দিকে সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে অসহায় পরিবারের মাঝে নগদ টাকা ছাড়াও খাবার তুলে দেন উপজেলা চেয়ারম্যান ফকরুল ইসলাম,নিমপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শামিম আহম্মেদ।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শামিম আহম্মেদ জানান, তাৎক্ষনিক সময়ে সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিটি পরিবারকে নগদ ২ হাজার করে মোট ১০ হাজার টাকা, ৩০ কেজি করে শুকনা খাবার দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান ৫টি পরিবারকে ১০ হাজার টাকা, ১০টি কম্বল ও ৫ চাদর প্রদান করেছেন। অপর দিকে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ৫টি পরিবারকে নগদ ৫ হাজার টাকা, ৫টি কম্বল ও ৫০ কেজি চাউল তুলে দিয়েছেন।


আরো খবর