• ঢাকা, বাংলাদেশ বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ০৩:৪৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম
কানে খোলামেলা পোশাক, ভাবনাকে ধুয়ে দিলেন অঞ্জনা পবায় ডাবলু ও মোহনপুরে বকুল বিজয়ী, দুই উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান হলেন যারা মোহনপুরে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সেই হাবিবার বাজিমাত রাজশাহীতে অটোরিকশাকে ট্রেনের ধাক্কা, নিহত ২ নগরীতে দুই অপহরণকারী গ্রেপ্তার, অপহৃত উদ্ধার রাসিক ইমপ্লয়মেন্ট স্কিল ডেভেলপমেন্ট ইনস্টিটিউটে প্রশিক্ষণ নিয়ে পেইড ইন্টার্নশিপের সুযোগ পেলেন ৯০ জন নিয়ামতপুরে দুর্নীতিবিরোধী বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত গোমস্তাপুরে জাতীয় শিক্ষা  সপ্তাহের পুরস্কার বিতরণী রহনপুরে  কৃতি শিক্ষার্থী  সম্বর্ধনা  বাঘায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সংঘাত ও সহিংসতা পরিহারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন
নোটিশ
রাজশাহীতে আমরাই প্রথম পূর্ণঙ্গ ই-পেপারে। ভিজিট করুন epaper.rajshahisangbad.com

তানোরে আদিবাসী কিশোরী গণধর্ষণের ঘটনায় তিনজন গ্রেপ্তার

রিপোর্টার নাম:
সর্বশেষ: মঙ্গলবার, ২৬ মার্চ, ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক
রাজশাহীর তানোর উপজেলায় আলু কুড়াতে এসে এক আদিবাসী কিশোরী গণধর্ষণের শিকার হয়েছে। গণধর্ষনের দৃশ্য মোবাইল ফোনে ভিডিও করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে তানোর উপজেলার কলমা ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের চকরহমত সালতলা আদিবাসিপাড়ায়।

এঘটনায় সোমবার সকালে ভিকটিম ওই কিশোরী (১৮) নিজে বাদি হয়ে তানোর থানায় মামলা করেন। পুলিশ সোমবার রাতে চকরহমত আদিবাসিপাড়া সালতলা গ্রামের রুবেল (২২), সামিউল (২৩) ও সেভেনকে (২০) গ্রেপ্তার করেন। গতকাল মঙ্গলবার তাদের জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, চাঁপাইনব্বাগঞ্জ জেলার রহনপুর রতনপুর আদিবাসী গ্রামের মৃত জৈনক ব্যক্তির তিন মেয়ে আলু কুড়ানোর জন্য তার ফুফুর বাড়ি তানোর উপজেলার কলমা ইউনিয়নের চকরহমত সালতলা আদিবাসিপাড়া এক সপ্তাহ আগে আসেন। শনিবার সন্ধ্যার তিন মেয়ের মধ্যে ছোট কিশোরী মেয়ে (১৮) তার ফুফুর বাড়ির পাশের এক মোসলমান ছেলের সঙ্গে গল্প করছিলো। এসময় চকরহমত সালতলা আদিবাসিপাড়ার রুবেল ও সামিউল তাদের দেখে দুইজনকে ভয় ভিতি দেখিয়ে ওই মোসলমান ছেলেকে মারপিট করে তাড়িয়ে দেয়। এসময় ওই কিশোরীর মুখ চেপে ধরে মাঠের মধ্যে নিয়ে গিয়ে দুইজন জোরপূর্বর ধর্ষণ করে। পরে রাত আটার দিকে রুবেল মোবাইল ফোনে তার বন্ধ্র সেভেনকে ডেকে নেয়। সেভেন গিয়ে সেই ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করেন।

একপর্যায়ে তাদের ধর্ষণের দৃশ্য রুবেল মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারণ করে। এসময় ওই কিশোরীকে ভয় ভিতি দেখিয়ে মোবাইলে ধারণকৃত ভিডিও দেখায়। এবং বলেন কাউকে কোন কিছু বলবিনা। যদি বলিশ তাহলে এই মোবাইলের ভিডিও নেটে ছেড়ে দিবো। মেয়েটি ভয়ে কাউকে কিছু না বলে বড় দুই বোনকে সঙ্গে করে পর দিন রবিবার নিজ বাড়ি রহনপুর রতনপুর আদিবাসী গ্রামে চলে যায়। বাড়ি গিয়ে ওই মেয়ে তার বোনদের বিষয়টি খুলে বলেন। গতকাল সোমবার সকালে ওই ধষর্ণের শিকার ওই কিশোরীসহ তার বড় দুই বোন সকালে থানায় উপস্থিত হয়ে ওসি কে বিষয়টি খুলে বলেন।

তানোর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুর রহিম বলেন, বিষয়টি আমরা গুরুত্ব সহকারে আমলে নিয়েছি। মেয়েটি গণধর্ষণের শি^কার হয়েছে। কলমা ইউনিয়নের বিটপুলিশের দায়িত্বে এসআই জাহাঙ্গীর আলম সরকারসহ সঙ্গিও ফোর্স নিয়ে রাতে আসামীদেও গ্রেপ্তার করেছেন।


আরো খবর