• ঢাকা, বাংলাদেশ বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ০৩:২১ অপরাহ্ন
শিরোনাম
কানে খোলামেলা পোশাক, ভাবনাকে ধুয়ে দিলেন অঞ্জনা পবায় ডাবলু ও মোহনপুরে বকুল বিজয়ী, দুই উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান হলেন যারা মোহনপুরে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সেই হাবিবার বাজিমাত রাজশাহীতে অটোরিকশাকে ট্রেনের ধাক্কা, নিহত ২ নগরীতে দুই অপহরণকারী গ্রেপ্তার, অপহৃত উদ্ধার রাসিক ইমপ্লয়মেন্ট স্কিল ডেভেলপমেন্ট ইনস্টিটিউটে প্রশিক্ষণ নিয়ে পেইড ইন্টার্নশিপের সুযোগ পেলেন ৯০ জন নিয়ামতপুরে দুর্নীতিবিরোধী বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত গোমস্তাপুরে জাতীয় শিক্ষা  সপ্তাহের পুরস্কার বিতরণী রহনপুরে  কৃতি শিক্ষার্থী  সম্বর্ধনা  বাঘায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সংঘাত ও সহিংসতা পরিহারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন
নোটিশ
রাজশাহীতে আমরাই প্রথম পূর্ণঙ্গ ই-পেপারে। ভিজিট করুন epaper.rajshahisangbad.com

দুর্গাপুরে শুরুতেই শেষ বারণীর গঙ্গা স্নান মেলা

দুর্গাপুর প্রতিনিধি
সর্বশেষ: শনিবার, ৬ এপ্রিল, ২০২৪

রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলায় শত-বছরের ঐতিহ্যবাহী কালীপূজা ও বারণীর গঙ্গা স্নান মেলা জমে উঠেছে। ঈদকে সামনে রেখে  বাড়তি  আমেজ যুক্ত করেছে এই মেলা। ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সকলের উপস্থিতি মেলাকে করেছে আনন্দময়।
তবে একদিনের মেলা হওয়াতে  জনগনের উপস্থিতি অনেকটাই কম। মেলায় আগত শিশু-কিশোর থেকে বিভিন্ন বয়সী মানুষ ও দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আগত ভক্ত দর্শনার্থীদের ভিড়ে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে মেলা প্রাঙ্গণে।
প্রতিবছর বাংলার চৈত্র মাসের ত্রয়োদশী তিথিতে মাড়িয়া ইউপির কিসমত হোজার ঐতিহ্যবাহী কালী মন্দিরে সনাতন ধর্মালম্বীদের এই পূজা অনুষ্ঠিত হয়। মনোবাসনা পূর্ণ করতে মন্দিরের পাশের হোজা নদীতে অনেকেই বিভিন্ন জিনিস ডাব উৎসর্গ করে থাকেন। পশু বলিদানের মধ্য দিয়ে আত্মার পরিশুদ্ধি ঘটান ভক্তরা।
সেই সাথে চলতে থাকে স্থানীয়দের বাড়িতে বাড়িতে উৎসব। বিভিন্ন এলাকার থেকে আগত শুভাকাঙ্ক্ষীদের আগমন ঘটে বাড়িতে। তাদের আপ্যায়নের জন্য মুড়ি, মুড়কি, লাডু, সন্দেশ সহ বিভিন্ন ধরনের খাবার উপস্থাপন করা হয়।
৬ এপ্রিল শুরু হয়েছে মেলা তবে রমজান ও আসন্ন ঈদের জন্য সময় সংক্ষিপ্ত করে ১ দিনের করা হয়েছে । মেলা ঘুরে দেখাযায়, হরেক রকমের পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসেছেন বিক্রেতারা। শিশুদের আনন্দ- বিনোদনের জন্য মেলায় পাওয়া যাচ্ছে মাটির পুতুল, পালকি, ঘোড়া, ষাঁড়, হরিণ, হরেক রকমের ঘুড়ি, টমটম, লাটিম, গাড়ি, বল, বেলুন, বাঁশিসহ নানান রকমের খেলনা।
গাঁয়ের বধূ ও কিশোরীরা মেলা থেকে কিনে নেন আলতা, স্নো, পাউডার, কাঁচের চুড়ি, নাকের নোলক, কানের দুল, চুলের ফিতা, খোপা, ক্লিপসহ দেহাবরণের জিনিসপত্র। হিন্দু রমণীরা মেলা থেকে ফিরে একে অপরকে জলেভাসা সাবান ও সিঁদুর উপহার দিয়ে শুভ কামনা জানান।
এ ছাড়া গেরস্থালির জিনিসপত্র যেমন দা, কাঁচি, কুড়াল, খুন্তি, রান্না-বান্নার সরঞ্জাম, পাখা, চালনী ইত্যাদি মিলছে মেলায়। ধর্ম-বর্ণ-সম্প্রদায়ের উর্ধে উঠে মেলা মানুষের মধ্যে সম্প্রীতির বন্ধন গড়ে উঠেছে মেলায়।
মেলার সার্বিক নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছেন থানা পুলিশ। দুর্গাপুর থানা পূজা উদযাপন পরিষদ কমিটির সভাপতি বিনয় সরকারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আনন্দ সরকারের সঞ্চালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সিনিয়র সহ- সভাপতি রণজিৎ কবিরাজ, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, দুর্গাপুর থানা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি তারকনাথ মজুমদার, উপজেলা পূজা উৎযাপন কমিটির সহ- সভাপতি প্রশান্ত কুমার সাহা, আইন বিষয়ক সম্পাদক বিমল চন্দ্র শীল, ও আওয়ামী লীগ নেতা সুকুমার চন্দ্র কবিরাজ।
বক্তারা বলেন, ধর্ম যার যায় উৎসব সবার,  রমজানের মাঝে তিথির সময় পড়ে যাওয়ার এবারের উৎসব একদিন করেছেন। পরিশেষে  সকলের মঙ্গল কামনা করেন বক্তারা।


আরো খবর