• ঢাকা, বাংলাদেশ রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:৫৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
রাজশাহীতে সম্ভাবনাময় কর্মসংস্থানের খাত প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে চলার নামইতো সাংবাদিকতা জমকালো আয়োজনে রাজশাহী সংবাদের বর্ষপিূর্তি উদযাপন শেখ হাসিনার হাত ধরেই এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ: জাতীয় সংসদে প্রথম বক্তব্যে আসাদ শাহীন স্কুল রাজশাহী শাখার বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরষ্কার বিতরণ বিজয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থার বার্ষিক বনভোজন ও পুরস্কার বিতরণ ট্যুর মুরল্যান্ডের একযুগ পূর্তি উপলক্ষে আনন্দ শোভাযাত্রা ও র‌্যালি রাজশাহীর আওয়ামী লীগ কর্মী নয়লাল হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবিতে মানববন্ধন রাজশাহী টিভি জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের নির্বাচন ২৪ ফেব্রুয়ারি আওয়ামী লীগ নেতা পিন্টু আর নেই

নাটোরে অপহৃত নারী সাতক্ষীরা সীমান্তে উদ্ধার, গ্রেপ্তার ২

রিপোর্টার নাম:
আপডেট মঙ্গলবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২৩

নাটোর প্রতিনিধি

নাটোর সদরের কাফুরিয়া থেকে অপহৃত এক গৃহবধূকে ভারতে পাচারের সময় সাতক্ষীরার সীমান্তবর্তী সোনাবাড়িয়া থেকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব। এ সময় অপহরণ ও পাচারে জড়িতের অভিযোগে দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে এসব তথ্য জানিয়েছেন সিপিসি নাটোর-২-এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর আশিকুর রহমান। গ্রেপ্তারকৃতদের নাটোর সদর থানায় এবং গৃহবধূকে স্বামীর কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন শাজাহান আলী (৩০) ও কবির হোসেন (৩৮)। তারা যশোরের মনিরামপুর মশ্বিমনগর ও শ্যামপুরের বাসিন্দা এবং সম্পর্কে তারা শালা-দুলাভাই। এদের মধ্যে শাজাহান ভারত ও বাংলাদেশের দ্বৈত নাগরিক। তিনি একজন পেশাদার নারী পাচারকারী।

মেজর আশিকুর রহমান জানান, প্রায় সাত বছর আগে নাটোর সদর উপজেলার এক যুবকের সঙ্গে বিয়ে হয় ভুক্তভোগী নারীর। দুই মাস আগে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে শাজাহানের সঙ্গে কথাবার্তার সূত্র ধরে পরিচয় হয় ওই গৃহবধূর। শাজাহান গৃহবধূকে চাকরিসহ বিভিন্ন প্রলোভন দেখান। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে সখ্য গড়ে উঠলে শাজাহান তাকে অপহরণ ও ভারতে পাচারের পরিকল্পনা করেন। এরই ধারাবাহিকতায় ভুক্তভোগী গৃহবধূকে বিয়ে করার কথা বলে শাজাহান গত ৯ সেপ্টেম্বর দুপুরে কাফুরিয়া ইউনিয়নের জালালাবাদ বাজার থেকে সিএনজি অটোরিকশায় তুলে নিয়ে যান। এ ঘটনায় ওই দিন রাতে গৃহবধূর স্বামী নাটোর সদর থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করেন।

এরপর তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে র‌্যাব তাদের অবস্থান শনাক্ত করে। পরে র‌্যাব-৬ সদস্যদের সহযোগিতায় কলারোয়া সীমান্তবর্তী সোনাবাড়িয়া থেকে গৃহবধূকে উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব কর্মকর্তা আশিক আরও জানান, শাজাহান ভারত ও বাংলাদেশের দ্বৈত নাগরিক। তিনি একজন পেশাদার নারী পাচারকারী। ছোটবেলায় তার মা তাকে নিয়ে ভারতে চলে যান। ছয় বছর আগে তিনি পুনরায় বাংলাদেশে আসেন এবং যশোরের মনিরামপুরে তার বাবা সোবাহান আলীর সঙ্গে বসবাস শুরু করেন।

দেশের বিভিন্ন প্রান্তের মেয়েদের টার্গেট করে ভারতে পাচারের মাধ্যমে মোটা অঙ্কের টাকা রোজগারই তার পেশা। এ কাজে তাকে তার দুলাভাই কবির হোসেনসহ আরও অনেকে সহায়তা করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

এই ক্যাটাগরিতে আরো নিউজ
%d