• ঢাকা, বাংলাদেশ বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:২২ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
রাজশাহীতে সম্ভাবনাময় কর্মসংস্থানের খাত প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে চলার নামইতো সাংবাদিকতা জমকালো আয়োজনে রাজশাহী সংবাদের বর্ষপিূর্তি উদযাপন শেখ হাসিনার হাত ধরেই এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ: জাতীয় সংসদে প্রথম বক্তব্যে আসাদ শাহীন স্কুল রাজশাহী শাখার বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরষ্কার বিতরণ বিজয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থার বার্ষিক বনভোজন ও পুরস্কার বিতরণ ট্যুর মুরল্যান্ডের একযুগ পূর্তি উপলক্ষে আনন্দ শোভাযাত্রা ও র‌্যালি রাজশাহীর আওয়ামী লীগ কর্মী নয়লাল হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবিতে মানববন্ধন রাজশাহী টিভি জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের নির্বাচন ২৪ ফেব্রুয়ারি আওয়ামী লীগ নেতা পিন্টু আর নেই

বাগমারায় স্ত্রী হত্যার অভিযোগে স্বামী গ্রেপ্তার

রিপোর্টার নাম:
আপডেট মঙ্গলবার, ৩০ জানুয়ারী, ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক

মা-বোনকে অন্য রুমে আটকে রেখে স্ত্রীকে সাবল দিয়ে হত্যার দায়ে রুবেল হোসেন (২৮) নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গ্রেপ্তারকৃত রুবেল বাগমারা এলাকার মৃত ওসমান আলীর ছেলে। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে র‌্যাব- ৫ এর সদর দপ্তরে অনুষ্ঠানিকভাবে অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মুনীম ফেরদৌস এ তথ্য জানান।

র‌্যাব জানায়, সোমবার রাত ১১ টার দিকে নগরীর কাটাখালীর মাসকাটাদীঘি পূর্বপাড়া গ্রামস্থ এলাকায়  অভিযান চালিয়ে স্ত্রী হত্যা মামলার মূলহোতা পলাতক আসামী রুবেল হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

রুবেল প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে র‌্যাবকে জানায়, সে পেশায় একজন রডমিন্ত্রী। রুবেল প্রায় ৭ বছর পূর্বে পারিবারিকভাবে ভিকটিম ঝর্ণা আক্তার লিপিকে (২৫) বিয়ে করে। তাদের সংসার জীবনে ১টি ছেলে সন্তান রয়েছে। রুবেল একজন মাদকাসক্ত। তার গ্রামীণ ব্যাংক ও ব্যুরো বাংলাদেশ এনজিও হতে বিভিন্ন অংকের ঋণ নেয়া ছিল বিধায় হতাশাগ্রস্থ ছিল। যার প্রেক্ষিতে বিবাহের পর হতে সংসারের তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রায়ই আসামী তার স্ত্রীকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করে আসছে। এছাড়াও আসামী ভিকটিমকে অন্য কারও সাথে সম্পর্ক আছে বলে সন্দেহ করত যার ফলে সার্বক্ষণিক পারিবারিক কলহ লেগে থাকতো এবং একপর্যায়ে তার স্ত্রীকে মারপিট করে বাড়ী হতে তাড়িয়ে দেয়। কয়েকদিন পরে আসামী রুবেল তার শ্বশুরবাড়ী গিয়ে শ্বশুরবাড়ীর লোকজনের নিকট মাফ চেয়ে বলে, “আর কখনো মারপিট করবো না, একটি বারের মত আমাকে সুযোগ দিন, আমি ভাল হয়ে যাব।” আসামীর কথামত সরল বিশ্বাসে পুনরায় ভিকটিমকে তার বাড়ীতে নিয়ে আসে। গত ২৮ জানুয়ারি রাত সাড়ে ৯ টার দিকে আসামী ও ভিকটিম শয়ন কক্ষে শুয়ে পড়ে। ২৯ জানুয়ারি রাত সাড়ে ৪ টার দিকে আসামী তার মা ও বোনকে অন্য একটি ঘরে তালাবদ্ধ করে আটকে রেখে লোহার ধারালো শাবল দিয়ে ভিকটিমের গলা, বুক ও থুতনিতে গুরুতর আঘাত করে নৃশংসভাবে খুন করে সকলের অগোচরে আসামী অন্যত্র পালিয়ে যায়।

পরবর্তীতে রাজশাহী মহানগরীতে বন্ধুর বাসায় আত্মগোপনে করে রুবেল হোসেন।  পরে কাটাখালীর মাসকাটাদীঘি পূর্বপাড়ায় অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

এই ক্যাটাগরিতে আরো নিউজ
%d