• ঢাকা, বাংলাদেশ রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:২৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
রাজশাহীতে সম্ভাবনাময় কর্মসংস্থানের খাত প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে চলার নামইতো সাংবাদিকতা জমকালো আয়োজনে রাজশাহী সংবাদের বর্ষপিূর্তি উদযাপন শেখ হাসিনার হাত ধরেই এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ: জাতীয় সংসদে প্রথম বক্তব্যে আসাদ শাহীন স্কুল রাজশাহী শাখার বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরষ্কার বিতরণ বিজয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থার বার্ষিক বনভোজন ও পুরস্কার বিতরণ ট্যুর মুরল্যান্ডের একযুগ পূর্তি উপলক্ষে আনন্দ শোভাযাত্রা ও র‌্যালি রাজশাহীর আওয়ামী লীগ কর্মী নয়লাল হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবিতে মানববন্ধন রাজশাহী টিভি জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের নির্বাচন ২৪ ফেব্রুয়ারি আওয়ামী লীগ নেতা পিন্টু আর নেই

রাজশাহীতে ঈদের রাতেই কুরবানীর সব বর্জ্য অপসারণ হবে

রিপোর্টার নাম:
আপডেট বুধবার, ২৮ জুন, ২০২৩

রাসিকের পরিচ্ছন্ন বিভাগের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীর ছুটি বাতিল

নিজস্ব প্রতিবেদক 

রাজশাহী শহরে কুরবানীর সব বর্জ্য ঈদের রাতেই পরিস্কার করা হবে। এজন্য প্রয়োজনীয় পরিকল্পনা নিয়েছে সিটি কর্পোরেশন। ঈদের দিন বিকেল থেকে শুরু হয়ে রাতভর চলবে পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম। এবারের ঈদে প্রায় ৪ হাজার মে.টন কুরবানীর বর্জ্য হতে পারে বলে ধারনা করছে সিটি কর্পোরেশন। এসব আবর্জনা রাতের মধ্যেই পরিস্কার করার জন্য ঈদের দিন রাসিকের পরিচ্ছন্নতা বিভাগের কর্মী থেকে শুরু করে কর্মকর্তাদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। রাসিকের পরিচ্ছন্নতা বিভাগের পরিকল্পনা অনুযায়ি প্রতিবছরের মত এবারো রাজশাহী শহরের বর্জ্য ঈদের রাতেই পরিস্কার হয়ে যায়। ঈদের পরদিন সকালেই পরিচ্ছন্ন নগরী পাবে নগরবাসী।
রাসিকের প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ মো. মামুন ডলার জানান, কুরবানীর ঈদের সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ কাজ হলো বর্জ্য অপসারণ করা। এমনিতেই রাজশাহী শহরে প্রতিদিন সাড়ে ৩শ থেকে ৪শ মে.টন ময়লা আবর্জনা হয়। এটি অপসারণ করেন পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা। আর ঈদের দিন এবারে প্রায় ৪ হাজার মে.টন বর্জ্য হবে। এটি দ্রুত অপসারণ করা আমাদের একটি চ্যালেঞ্জ। তবে এই চ্যালেঞ্জে আমরা প্রতিবছরই সফল হই। মধ্য রাতের মধ্যেই অপসারণ কাজ শেষ করে ফেলি। এবারো এটি সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। এজন্য সোমবার কুরবানীর পশু জবেহকরণ ও দ্রুত বর্জ্য অপসারণ বিষয়ে রাসিকের ওয়ার্ড সচিব, ওয়ার্ড সুপারভাইজার এবং পরিচ্ছন্ন পরিদর্শক ও কেন্দ্রীয় সুপারভাইজারদের সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় জানানো হয়, ঈদ-উল-আযহার দিন সকাল হতে শুরু করে রাতের মধ্যেই নগরীর সকল বর্জ্য অপসারণ হবে। ঈদের পরদিনই এই মহানগরী হয়ে উঠবে একটি পরিচ্ছন্ন নগরী। বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম রাতের মধ্যেই শেষ করার লক্ষ্যে কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। এ লক্ষ্যে পরিচ্ছন্ন বিভাগের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীর ছুটি বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে।
শেখ মো. মামুন বলেন, কুরবানী কাটাকাটি শেষ হওয়ার পরই প্রতিটি বাড়ির সামনে থেকে ভ্যানে করে ময়লা আবর্জনা সংগ্রহ করে নিয়ে যাওয়া হবে সেকেন্ডারি পয়েন্টে। মুলত বিকেল ৫টা থেকে ট্রলি-ট্রাক্টরে করে সেখান থেকে ময়লা নিয়ে যাওয়া হবে ভাগাড়ে। এসব বর্জ্য অপসারণে কর্মকর্তাসহ পরিচ্ছন্নতা বিভাগের ১হাজার ৩৮৪ জন কর্মী কাজ করবেন। ২৬৭টি রিকশা ভ্যানে করে ময়লা নেয়া হবে পাড়া মহল্লা থেকে। যেসব যায়গা থেকে বর্জ্য তোলা হবে সাথে সাথে সেখানে পানি দিয়ে পরিস্কার করে ব্লিচিং পাওডার ছিটিয়ে দেয়া হবে। এজন্য দুটি পানি বাহি ট্রাক শহরে কাজ করবে।
পরিচ্ছন্নতা বিভাগের তথ্যমতে, বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ঈদের দিন রাসিকে একটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। কন্ট্রোল রুমের মোবাইল নম্বর : পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মনিটরিং -০১৭১৩-০৯৮৯৫৬, অফিস সহকারী : ০১৭১৬-৪০৮০৭১।
পরিচ্ছন্নতা বিভাগের পক্ষ বলা হয়েছে, ঈদের দ্বিতীয় দিনও অনেকেই কুরবানী জবাই করেন। একারণে পরের দিন যেসব বর্জ্য হবে নিয়ম অনুযায়ি সেগুলো পরিস্কার করা হবে। এক্ষেত্রে নগরবাসীতে যেখানে সেখানে পশু জবাই না করে নির্ধারিত স্থানে জবাই করার জন্য প্রচারণা চালানো হচ্ছে। সেই সাথে বর্জ্য ছড়িয়ে ছিটিয়ে না রাখার জন্য অনুরোধ জানানো হচ্ছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

এই ক্যাটাগরিতে আরো নিউজ
%d