• ঢাকা, বাংলাদেশ রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৫২ পূর্বাহ্ন

রাজশাহী কলেজে তিন দিনব্যাপী বইমেলা শুরু

রিপোর্টার নাম:
সর্বশেষ: বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪
রাজশাহী কলেজে তিন দিনব্যাপী বইমেলা শুরু
রাজশাহী কলেজে তিন দিনব্যাপী বইমেলা শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক
বই পড়ার অভ্যাস বাড়াতে রাজশাহী কলেজের উদ্যোগে শুরু হয়েছে তিন দিনব্যাপী বইমেলা। বুধবার (২০ ফেব্রুয়ারি) সকালে রাজশাহী কলেজ গ্রন্থাগারের সামনে এ বই মেলার উদ্বোধন করেন অধ্যক্ষ প্রফেসর মোহাঃ আব্দুল খালেক।

আজ থেকে আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তিন দিন প্রতিদিন সকাল ৭টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত এই মেলা চলবে। মেলায় রাজশাহী ছড়া সংসদ, রাজশাহী পড়ুয়া সমাবেশ, সতীর্থ প্রকাশনা, দিকদর্শন ও গ্রন্থ কুটির, বর্ণমালা, পদ্মা বই বিতান, বাতিঘর, বই বিতান, ভাই বোন লাইব্রেরি, অক্সফোর্ড লাইব্রেরি, শিক্ষা নগরী পুস্তকালয়, আলো ঘর প্রকাশনা, রাজশাহী সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সংসদ, ওয়াহীদিয়া ইসলামিয়া লাইব্রেরী, তিতাস বুকস, বই ঘরসহ স্থানীয় ১৭টি স্টলে বিভিন্ন প্রকাশনী, লাইব্রেরি ও সামাজিক সংগঠন অংশগ্রহণ করেছে।

রাজশাহী ছড়া সংসদের সাধারণ সম্পাদক হাসান আবাবিল বলেন, আমরা পাঠককে জ্ঞানের দিকে এগিয়ে নিতে এখানে এসেছি, যেন সকল ধরনের মানুষ এই সকল বই পড়ে তাদের জ্ঞানকে আলোকিত করতে পারে। আমরা যে সকল বই নিয়ে এসেছি আশা করি পাঠকদের মন জয় করতে পারব। আমাদের আর দশটা লাইব্রেরি মত বই বিক্রি করার উদ্দেশ্য নেই আমরা চাই, তাদেরকে লেখার প্রতি আকৃষ্ট করা এবং তাদের লেখাগুলো আমাদের কাছে নিয়ে আসা এগুলো নিয়ে রাজশাহী ছড়া সংসদ কাজ করবে।

রাজশাহী কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মোহাঃ আব্দুল খালেক বলেন, এই ভাষার মাসে আমরা কলেজের পক্ষ থেকে বাংলা ভাষা, বাংলা বনান শুদ্ধ করার লক্ষ্যে আমরা প্রতি বছর এই বইমেলার আয়োজন করি। তারই ধারাবাহিকতায় এ বছর বই মেলা আয়োজন করা হয়েছে। আমরা মাতৃভাষা নিয়ে যেন অনেক কিছু জানতে পারে এবং সু-নাগরিক হতে হলে অবশ্যই শিক্ষা গ্রহণ ছাড়া কোন উপায় নেই, এই বইমেলার মাধ্যমে অনেক শিক্ষার্থী বই পড়ার প্রবণতা সেটি বইমেলার প্রকাশ পাচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, শিশু থেকে শুরু করে বৃদ্ধ এই বই মেলা আসছে, তারা বই কিনছে এবং অনেক শিক্ষার্থীরা বই মেলার ভিড় করছে। অনলাইনে এখন সকল ধরনের বই পাওয়া যায়, তবে যারা বই পড়াশোনা করে তারা প্রিন্টের বইগুলো বেশি পড়তে চায়, এই বইমেলাতে শিক্ষার্থীরা অনলাইন থেকে বের হয়ে বই মুখে হবে। এই বইমেলায় ১৯ টি স্টল রেখেছি তার মধ্যে দুইটি স্টল স্বাস্থ্য কেন্দ্র হিসেবে কাজ করবে আর বাকি ১৭ টি স্টল বই বিক্রি করবে।


আরো খবর